জন্মাষ্টমী কি এবং কেন পালন করা হয় ?

0

শুভ জন্মাষ্টমী ছবি

Table Of Content (toc)

জন্মাষ্টমী 2022

দেখতে দেখতে চলে এলো ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী তিথি ।

প্রতি বছর ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমীতে উদযাপিত হয় জন্মাষ্টমী । কৃষ্ণভক্তরা ওই দিন আরাধ্যের জন্মদিন ধুমধাম করে উদযাপন করেন এবার জন্মাষ্টমী পড়েছে ১৮ আগস্ট, বৃহস্পতিবার । রোহিণী নক্ষত্রে অষ্টমীতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন শ্রীকৃষ্ণ । এ বার জন্মাষ্টমীতে বৃদ্ধি যোগ তৈরি হচ্ছে । তা অত্যন্ত শুভ ও ফলদায়ক বলে মত জ্য়োতিষ বিশেষজ্ঞদের । জন্মাষ্টমীর দিন শ্রীকৃষ্ণের শিশুরূপের পুজো করেন ভক্তরা ।

শুধু মথুরা, বৃন্দাবন বা দ্বারকায় নয় জন্মাষ্টমীর উৎসব সারাদেশে ধুমধাম করে উদযাপিত হয় । পশ্চিমবঙ্গে বহু বাড়িতে গোপালকে পুজো করেন গৃহকর্ত্রীরা । ঘরে ঘরে দোলনায় দোল খান গোপাল ।

এখানেঃ জেনে নিন জন্মাষ্টমীর পারণ মন্ত্র

জন্মাষ্টমীর তারিখ এবং শুভ সময়

তারিখ- ১৮ আগস্ট, বৃহস্পতিবার

অষ্টমী শুরু- ১৮ আগস্ট রাত ৯টা ২১ মিনিট থেকে ।

অষ্টমী শেষ- ১৯ আগস্ট রাত ১০টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত ।

শুভ মুহূর্ত - ১৮ আগস্ট দুপুর ১২টা ৫ মিনিট থেকে ১২টা ৫৬ মিনিট পর্যন্ত ।

বৃদ্ধি যোগ - ১৭ আগস্ট রাত ৮ টা ৫৬ মিনিট থেকে ১৮ আগস্ট রাত ৮টা ৪১ মিনিট ।

জন্মাষ্টমীর দিন রাহু কাল ১৮ আগস্ট দুপুর ২টা ৬ মিনিটে শুরু হবে এবং ৩টা ৪২ মিনিটে শেষ হবে । এই সময়ে কোনও অশুভ কাজ করবেন না ।

আরো জানুনঃ জন্মাষ্টমী কিভাবে পালন করবেন ? জেনে নিন সকল প্রশ্নের উত্তর!

জন্মাষ্টমী পুজো বিধি

জন্মাষ্টমীর দিন রাত ১২টায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন  শ্রীকৃষ্ণ । এই দিনে শ্রীকৃষ্ণকে দুধ ও গঙ্গাজল দিয়ে স্নান করানো হয়। তার পর পরানো হয় নতুন পোশাক । এরপর ময়ূরের পালক, বাঁশি, মুকুট, চন্দন, মালা, তুলসি ইত্যাদি দিয়ে সাজানো হয় গোপালকে ।  ফল, ফুল, মাখন, মাখন, চিনি, মিষ্টি, শুকনো ফল ইত্যাদি নিবেদন করুন । তার পর শ্রীকৃষ্ণের সামনে প্রদীপ ও ধূপ জ্বালান । শেষে শ্রীকৃষ্ণের শিশুরূপের আরতি করুন । সকলের মধ্যে প্রসাদ বিতরণ করুন ।

জন্মাষ্টমী কেন পালন করা হয় ?

পাপমোচন ও ধর্মসংস্থাপন ও সাধুপরিত্রাণের জন্য ভাদ্রমাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে শ্রীকৃষ্ণের জন্ম ।
এই দিনটিতে ব্রতপালন করলে মনের ও শরীরের ময়লা দূর হয় । সৎগুণের জয় হয় যার ফলস্বরূপ সাধু উদ্ধার হয় ।
সূক্ষ্মার্থে জন্মমৃত্যুর মাঝের অল্প সময়ের জীবনে পাপ থেকে দূরে থাকলে ও সৎ বৃত্তির বিকাশ হলে পৃথিবীতে পাপ ভোগ করতে আসতে হয়না ।

আরো জানুনঃ ঝুলুনযাত্রা কি এবং কেন পালন করা হয় ?

জন্মাষ্টমী পূজার উপকরন

আগের দিন নিরামিষ খেতে হয় ও রাত্রে উপাষ করতে হয় । পরের দিন উপাষ করে রাত্রির প্রথম প্রহরে কৃষ্ণের আরাধনা পূর্বক পূজো করতে হয় । নাড়ু ,ক্ষীর, তালবোড়া, লুচি, মিছরি, মাখন, আতপচাল, তুলসীপাতা, ফুল, সাদাফুল, ফল, দূর্বা, ধূপ দীপ, গব্য, গুড়ি, বর্ণগুঁড়ি, পাট, বালি, মধুপর্কের বাটী, আসন, অঙ্গুরী সহযোগে কৃষ্ণের পূজো করতে হয় । গীতা পাঠ করতে হয় ।

আমরা শ্রীকৃষ্ণের জন্ম দিবস (জন্মাষ্টমী) পালন করি, কিন্তু মৃত্যু দিবস পালন করিনা কেন ?

মৃত্যুদিবস ! কার মৃত্যুদিবস ? পরমেশ্বরের ? ঈশ্বর তো মৃত্যুবরণ করেন নি । তিনি তো লীলা সংবরন করেছিলেন মাত্র । হয়তো আপনারা এবার বলতে পারেন,  যাঁর জন্ম হয়েছে তাঁর মৃত্যুও আছে । হ্যাঁ, ঠিকই তো যার জন্ম আছে তাঁর অবশ্যই মৃত্যু ও আছে ।
কিন্তু সেটি শুধু আমাদের মতো সাধারন মানুষের জন্য । ভগবান তো জন্ম-মৃত্যু রহিত । কিন্তু তা সত্ত্বেও তিনি জীবের কল্যাণে, লোক শিক্ষা প্রদানের জন্য জন্মগ্রহন করেছিলেন । ভগবান কখনও সাধারণ মানুষকে বলেন না, “আমি তোমাদের ভগবান’’ জ্ঞানীরা তা বুঝে নেন । আর যারা তাঁর লীলা বুঝতে সক্ষম তাঁদেরকেই তিনি নিজ মহিমা বলেন । আর বাকিদের জন্য এমন কিছু করে যান যাতে তাঁরা ভগবানকে বুঝতে পারেন ।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.
Post a Comment (0)
To Top