হিন্দু ধর্মের ৩৩ কোটি দেবতা | ৩৩ কোটি দেবতার রহস্য উন্মোচন

0

বলা হয়ে থাকে ৩৩ কোটি দেবতা আছে।

৩৩ কোটি দেবতা বলতে ৩৩ প্রকার দেবদেবী। সংস্কৃতে কোটি শব্দের দুটি অর্থ হয় -

১) প্রকার,
২) কোটি সংখ্যা

অনেকেই না বুঝে বলে আমাদের ৩৩ কোটি দেব-দেবী। সত্যিটা এই যে মোট ৩৩ প্রকার দেব-দেবতা আছে হিন্দু ধর্মে।

৩৩ কোটি দেবতার রহস্য

হিন্দুরা শুধুই জানে ৩৩ কোটি দেবতা আছে তাদের। কিন্তু কখনও তারা ৩৩ কোটি দেবতাগুলো কে কে এটা জানার চেষ্টাও করেনি। সংস্কৃত কোটি শব্দের বাংলা অর্থ প্রকার। ৩৩কোটি অর্থাৎ ৩৩ প্রকারের দেবতা হিন্দুদের। চলুন তাদের নামগুলো জেনে নিই।

শতপথ ব্রাহ্মণে (১৪/৫)যাজ্ঞবল্ক্য ঋষি শাকল্য বলছেন :

অষ্টবসু

১.অগ্নি

২.পৃথিবী

৩.বায়ু

৪.অন্তরীক্ষ

৫. দ্যৌঃ

৬.আদিত্য

৭.চন্দ্র

৮.নক্ষত্র

একাদশ রুদ্র :

৯.প্রাণ

১০.অপান

১১.ব্যান

১২.সমান

১৩.উদান

১৪.নাগ

১৫.কুর্ম

১৬.কৃকর

১৭.দেবদত্ত

১৮.ধনঞ্জয়

১৯.জীবাত্মা

দ্বাদশ আদিত্য :

১২মাসকে এক সাথে দ্বাদশ আদিত্য বলা হয় তাহলে ১৯+১২=৩১জন । এর সাথে আরো যুক্ত হয় অশ্বিনিকুমারদ্বয় । এই হলো ৩৩ কোটী দেবতা ।

সংস্কৃতে কোটি শব্দের দুটি অর্থ, একটি হল 'প্রকার' এবং অপরটি হল 'কোটি' (Crore) । বেদে তেত্রিশ কোটি (সংস্কৃত: ত্রয়স্তিমাশতি কোটি) দেবতা বলতে বেদে তেত্রিশ রকমের দেবতার কথা বলা হয়েছে । শতপথ ব্রাহ্মণ এবং অন্যান্য গ্রন্থে এটি পরিষ্কার ভাবে ব্যখ্যা করা হয়েছে । অথর্ব বেদের দশম অধ্যায় সপ্তম সুক্তের ত্রয়োদশ শ্লোকে বলা হয়েছে-

যস্য ত্রয়স্ত্রিংশদ্ দেবা অঙ্গে সর্বে সমাহিতাঃ।
স্কম্মং তং ব্রুহি কতমঃ স্বিদেব সঃ।।

অর্থাৎ, পরম ঈশ্বরের প্রভাবে এই তেত্রিশ জন দেবতা বিশ্বকে বজায় রেখেছে ।

শুরুতে ঋক্ বেদে তিন (৩) রকমের দেবতার কথা বলা হয়েছিল। এনারা ছিলেন- অগ্নি, বায়ু এবং সূর্য্য । ঋক্ বেদে পরবর্তী অধ্যায়ে সেই দেবতার সংখ্যা বেড়ে তেত্রিশ (৩৩) রকমের হয়। এনাদের মধ্যে এগারো জন পৃথিবীতে, এগারো জন বায়ুতে এবং বাকি এগারো জন মহাকাশ বা অন্তরিক্ষে অবস্থান করছেন ।

তেত্রিশ দেবতার নাম

বৃহদারন্যক উপনিষদে তেত্রিশ দেবতা সম্পাদনা

বৃহদারন্যক উপনিষদ (৩.৯.২ থেকে ৩.৯.১১)

বিদগ্ধ শাকল্য যাজ্ঞবল্ক্যকে জিজ্ঞাসা করিলেন, "হে যাজ্ঞবল্ক্য দেব (শক্তি) কয়টি?"

যাজ্ঞবল্ক্য বললেন, "৩৩টি"

তখন শাকল্য আবার বললেন, "হে যাজ্ঞবল্ক্য দেব কয়টি?"

তখন তিনি আবার বললেন, "৬টি"

শাকল্য আবার বললেন, "হে যাজ্ঞবল্ক্য দেব কয়টি?"

তখন যাজ্ঞবল্ক্য উত্তর দিলেন, "৩টি"

আবার শাকল্য জিজ্ঞাসা করায় তিনি উত্তর দিলেন দুইটি ।

তখন শাকল্য আবার জিজ্ঞাসা করলেন, "হে যাজ্ঞবল্ক্য দেব কয়টি?"

তখন যাজ্ঞবল্ক্য বললেন, "দেড়টি"

শাকল্য আবার জিজ্ঞাসা করলেন, "হে যাজ্ঞবল্ক্য দেব কয়টি?"

তখন তিনি বললেন "একটি!"

তখন শাকল্যজিজ্ঞাসা করলেন, "এই ৩৩টি দেব কি?"

যাজ্ঞবল্ক্য বললেন, "অষ্টবসু, যা হল- অগ্নি, পৃথিবী, বায়ু, অন্তরীক্ষ, আদিত্য, দ্যৌ, চন্দ্র এবং নক্ষত্র । একাদশ রুদ্র যা হল- প্রাণ (নিঃশ্বাস), অপান(প্রশ্বাস), ব্যন, সমান, উদাম, নাগ, কুর্ম্ম, কৃকল, দেবদত্ত, ধনঞ্জয় এবং জীবাত্মা । দ্বাদশ আদিত্য হলেন বছরের বারো মাস এবং ইন্দ্র, প্রজাপতি অর্থাৎ মোট ৩৩টি । ইন্দ্র হলেন বিদ্যুৎ আর প্রজাপতি হলেন যজ্ঞ (যে কোনশুভ কর্ম) ।"

তখন শাকল্য আবার জিজ্ঞাসা করলেন, "তাহলে ৬টা দেব কি ?"

তখন তিনি উত্তর দেন, "অগ্নি, পৃথিবী, বায়ু, অন্তরীক্ষ, আদিত্য, দ্যুঃ"

তখন তিনি বললেন, "তাহলে ৩টি দেব কি?"

তখন যাজ্ঞবল্ক্য বললেন, "তিনলোক (ভ্যু,দ্যু,অন্তরীক্ষ)"

তারপর শাকল্য আবার বললেন, "সেই দুইটি দেব কি কি?"

"খাদ্য এবং প্রান" উত্তর দিলেন যাজ্ঞবল্ক্য ।

তখন আবার শাকল্য জিজ্ঞেস করলেন "সেই দেড়টি কি?"

তখন যাজ্ঞবল্ক্য উত্তর দিলেন, "যিনি প্রবাহিত হন"

তখন শাকল্য বললেন, "সেই এক এবং অদ্বিতীয় যিনি প্রবাহিত হন তাঁকে আপনি কিভাবে দেড় বললেন?"

তখন যাজ্ঞবল্ক্য বললেন, "যখন তা প্রবাহিত হয় তখনই সবকিছু উত্পন্ন হতে শুরু করে।"
"তাহলে কে সেই এক?"

"সেই এক এবং অদ্বিতীয় ব্রহ্ম যাকে সবাই তত্ বলে জানে।"

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
To Top